আজ রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৪:০২ পূর্বাহ্ন


তাড়াশে ভূয়া জন্ম ও শিক্ষা সনদে চাকুরির অভিযোগ

আমিনুল ইসলাম হিরো, সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার কাজিপুর গ্রামের রায়হান আলীর পুত্র

মাহবুব আলম কে ভূয়া জন্ম সনদ এবং অষ্টম শেণীর শিক্ষা সনদে কাজিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নৈশ প্রহরীর চাকুরি দেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে ভূয়া সনদ ও জালিয়াতি করার জন্য একই গ্রামের শফিকুল ইসলামের পুত্র সুমন হাসান, তাড়াশ উপজেলা সহকারি জজ আদালত সিরাজগঞ্জে একটি মামলা দায়ের করেছেন।
মামলা নম্বর ৫৮/২০১৮। মামলা সূত্রে জানা যায়, সঠিক জন্ম সনদ ও জাতীয় পরিচয় পত্রে মোঃ মাহাববুর, রহমান, পিতাঃ রায়হান, মাতাঃ শাপলা, জন্ম তারিখ – ১০-১০-১৯৯৮। অথচ একই ব্যক্তি মাহবুব আলম নাম ব্যবহার করে ১০ -১০ – ১৯৯৫ জন্ম তারিখ দেখিয়ে উপজেলার পৌষার আদিবাসী উচ্চ বিদ্যালয় হতে অষ্টম শ্রেণীর বিদ্যালয় পরিত্যাগের ছাড়পত্র নিয়ে উক্ত চাকুরিতে আবেদন করেছে। একই ব্যক্তি আবার ০৩ – ০১ -২০০২ জন্ম তারিখ দেখিয়ে ২০১৮ সালে উপজেলার কাউরাইল ইছাহাক তফের আলী টেকনিক্যাল কলেজ হতে এস,এস,সি পাশ করেছে। যার রোল নম্বর ৬৪২৩৪৩। অপরদিকে এই মাহবুব আলমের বাবা রায়হান গত ০৪/১২/১৯৯৭ তারিখে নিকাহ রেজিষ্টির মাধ্যমে তার মা শাপলাকে
বিবাহ করেছেন। উল্লেখ্য মাহবুব তার বাবা মায়ের বিয়ের ২ বছর পুর্বেই জন্ম গ্রহন করেছে। বিষয়টা নিয়ে এলাকায় হাসি রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে।
ভূয়া সনদ,ভূয়া জন্ম তারিখ দেখার পরও নিয়োগ কমিটি কাগজ পত্র যাচাই বাছাই না করে কিসের ভিত্তিতে তাকে চাকুরিতে যোগদানের সিদ্ধান্ত দিয়েছেন। এমতাবস্হায় কাজিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রবিউল করিম গত – ২৮/০১/২০১৮ তারিখে রেজুলেশন কর্তন করে ২৭/১০/২০১৮ তারিখে নিয়োগ এবং
যোগদান পত্র গ্রহন করে। এব্যপারে উক্ত বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমি যা করেছি সঠিক ভাবেই করেছি। নিয়োগ কমিটির সভাপতি এস,এম ফেরদৌস ইসলাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাড়াশ, ও মোস্তাফিজুর রহমান উপজেলা শিক্ষা অফিসার বদলি হয়ে অন্যত্র চলে যাওয়ায় তাদের সংগে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। উক্ত বিদ্যালয়ের সভাপতি আলহাজ্ব ওয়াজেদ আলী সরকার এর সঙ্গে যোগাযোগ করলে বলেন,আমার স্বাক্ষর জালিয়াতি করে সমস্ত কাগজ পত্র প্রধান শিক্ষক সাহেব নিজেই তৈরী করে এই নিয়োগ দিয়েছেন। যা আমার বোধগম্য নয়। এ ব্যাপারে শিক্ষা কর্মকর্তা এবং প্রধান শিক্ষক লিখিত জবাব কোর্টে দাখিল করেছেন। এবং সভাপতি আগামী ধার্য তারিখে লিখিত জবাব কোর্টে দাখিল করবেন বলে জানিয়েছেন।