আজ মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ০৮:০০ অপরাহ্


কিসের লোভে ইসলাম ধর্ম ত্যাগ করে হিন্দু ধর্ম গ্রহন করলেন নূসরাত ফারিয়া

স্টাফ রিপোর্টারঃ পৃথিবীতে শান্তির ধর্ম হচ্ছে একমাত্র ধর্ম ইসলাম আর সে ইসলামের ঘরে কোন শিশু জন্ম নিলে সাথে সাথে আযান দেওয়া হয় এবং শিশুদের কানে কলেমা পড়ে শোনানো হয় বিশ্বের অনেক ইহুদি দেশের অন্যান্য ধর্ম অবলম্বী প্রতিনিয়ত ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করতে দেখা যায় বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীরা থেকে শুরু করে প্রফেসর ডঃ সবাই প্রতিনিয়ত ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করছে আবার অনেক বিধর্মী পুরুষ ইসলাম ধর্মের কোন মেয়েকে ভালো লাগলে ওই ধর্মের ছেলে ইসলাম ধর্মের মেয়েকে বিয়ে করে কলেমা পড়ে মুসলমান হয়ে যায় আবার অনেক হিন্দু মেয়ে মুসলিম ছেলেকে ভালবেসে বিয়ে

করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করতে দেখা যায় পৃথিবীর ইতিহাসে ইসলাম ধর্ম ত্যাগ করে অনেক কমই আছে অন্য ধর্ম থেকে ইসলাম ধর্মে বেশিরভাগ মানুষ ধর্ম গ্রহণ করছে ভারতের কিং খান নামে খ্যাত শাহরুখ খান বিয়ে করেছেন এক হিন্দু পরিবারের মেয়েকে কিন্তু শাহরুখ খান হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করেনি বরং তার স্ত্রী হিন্দু ধর্ম পালন করে এবং শাহরুখ খান ইসলাম ধর্ম পালন করে কিন্তু বাংলাদেশে হঠাৎ করে জনপ্রিয় অভিনেত্রী হয়ে উঠে নুসরাত ফারিয়া নামের এক অভিনেত্রী এক হিন্দু ছেলেকে বিয়ে করে ইসলাম ধর্ম ত্যাগ করার অভিযোগ উঠেছে সম্প্রতি তুরস্কে গিয়ে বিয়ে সেরেছেন নুসরাত। তার স্বামী একজন হিন্দু ধর্মের মানুষ। আর তাই তিনি বিয়ে শেষে মাথায় সিঁদুর দিয়ে ফিরেছেন নিজের লোকালয়ে। ইসলাম ত্যাগ করে হিন্দু ধর্ম গ্রহন করেছেন নুসরাত! আর তাতেই

পড়েন সমালোচনার মুখে। সম্প্রতি তার মাথার এই সিঁদুর দেখে প্রশ্নের মুখে পড়েন তিনি যে হিন্দুকে বিয়ে করে হিন্দু হয়ে গেলেন কিনা? এই ব্যাপারে নুসরাত বলেন, আমার মাথায় সিঁদুর দেখে অনেকে প্রশ্ন করেছেন, আমি কী হিন্দুকে বিয়ে করে হিন্দু হয়ে গেলাম? আমার তো মনে হয় কোন ধর্ম অনুসরণ করব, সেই সিদ্ধান্ত নেয়ার অধিকার সকলের রয়েছে। আমি জন্মসূত্রে ইসলাম ধর্মের। সেটাই অনুসরণ করছি। কিন্তু সব ধর্ম এবং তার নিয়মের প্রতি শ্রদ্ধা রয়েছে আমার। আমি এবং আমার স্বামী আমাদের ধর্ম পালন করছি। আমার তো মনে হয় এটাই স্বাভাবিক। তিনি আরও বলেন, জীবনে নেগেটিভিটিকে কখনো গুরুত্ব দেইনি। কাজই সব সময় আমার হয়ে কথা বলেছে। এবারো তাই হবে।

তার জন্ম পরিচয় হচ্ছে তার জন্মস্থান চট্টগ্রাম
তার নাম নুসরাত ফারিয়া মাজহার (জন্ম: ৮ সেপ্টেম্বর, ১৯৯৩) হলেন বাংলাদেশের একজন উপস্থাপক এবং মডেল। বিজ্ঞাপনচিত্রে গ্লামারাস হিসেবে উপস্থিতি এবং ভিন্নধর্মী উপস্থাপনার কারণে তিনি পরিচিত।২০১৫ সালে বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনার আশিকী চলচ্চিত্র এর মধ্য দিয়ে তার বড় পর্দায় অভিষেক হয়েছে। এই কাজের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ নবীন অভিনয়শিল্পী বিভাগে মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার অর্জন করেন। নুসরাত ফারিয়া মাজহার ১৯৯৩ সালের ৮ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামে জন্ম নেন। তার শৈশব কেটেছে ঢাকার আর্মি ক্যান্টনমেন্টে; বর্তমানেও সেখানেই বসবাস

করছেন। তার দাদা একজন সেনা কর্মকর্তা হওয়ায় ঢাকা সেনানিবাসে তাদের বসবাস। করার সুযোগ হয়েছে নুসরাত ফারিয়া মাজহার স্টাইলিশ হেয়ার অফ দা ক্যাম্পাস ২০১৪ এর গ্রান্ড ফিনালের অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করছেন আরজে হিসেবে কাজের মধ্য দিয়ে গণমাধ্যমে আগমন তার। আরটিভির ‘ঠিক বলছেন তো‘ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রথম টিভি পর্দায় উপস্থাপনায় আসেন নুসরাত ফারিয়া। ২০১২ সালে এনটিভির ‘থার্টিফাস্ট ধামাকা কক্সবাজার’ অনুষ্ঠানটি ফারিয়া সবার নজর কেড়ে নেন। ২০১৩ সালের জানুয়ারিতে বলিউড প্লেব্যাক শিল্পী সুনিধি চৌহানের ‘সুনিধি

লাইভ কনসার্ট’ শিরোনামের অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করে দারুণ প্রশংসিত হন তিনি। তার উপস্থাপিত বিভিন্ন জনপ্রিয় অনুষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে আরটিভির ‘লেট নাইট কফি উইথ নুসরাত ফারিয়া’, এসএ টিভির ‘ক্লিয়ার এসএ লাইভ স্টুডিও’, এটিএন বাংলার ‘ট্রেন্ড’, জিটিভির ‘লাক্স ওয়ার্ল্ড অব গ্ল্যামার’ এবং এনটিভির ‘স্টাইল অ্যান্ড ট্রেন্ড’, রেডিও ফুর্তিতে ‘নাইট শিফট উইথ ফারিয়া’ ইত্যাদি। এছাড়া নুসরাত ফারিয়া ‘ডোর’ নামে ফ্যাশন হাউসের ব্র্যান্ড মডেল এবং ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি, সিম্ফনি, সিটিসেল রিচার্জের বিজ্ঞাপনচিত্রে মডেল হয়ে কাজ করেছেন চলচ্চিত্র নায়িকা মাহিয়া

মাহীর সাথে জাজ মাল্টিমিডিয়ার সম্পর্কের অবনতি ঘটলে জাজ মাল্টিমিডিয়া তাদের নতুন নায়িকা হিসেবে নুসরাত ফারিয়াকে সবার সামনে তুলে ধরেন এবং বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনার ছবি প্রেমী ও প্রেমী’র নায়িকা হিসেবে ঘোষনা করেন। তবে প্রেমী ও প্রেমীই নুসরাত ফারিয়ার প্রথম চলচ্চিত্র নয়। ২০১৪ সালে রেদওয়ান রনি পরিচালিত মরীচিকা চলচ্চিত্রে নায়িকা হিসেবে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন নুসরাত ফারিয়া, কিন্তু অজ্ঞাত কোন কারণে চলচ্চিত্রটির কাজ শুরু হয়নি। বরং কিছুদিন পরে চলচ্চিত্রে নাম এবং পাত্র-পাত্রী বদল করে রেদওয়ান রনি নতুন চলচ্চিত্রের কাজ শুরু করেন। জনপ্রিয় এই নায়িকা তার ইসলাম ধর্ম ত্যাগ করার কারণে তার ভক্ত কমে যাবে কিনা প্রশ্ন করলে তিনি এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন