আজ বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ০৭:৫১ পূর্বাহ্ন


মানবতার সেবায় অনন্য অবদান রাখলেন মো. জাহাঙ্গীর আলম

নিজস্ব প্রবিবেদকঃ
জীবনের উদেশ্যে শুধু নিজেকে সুখী করা নয় বরং উদ্দেশ্যে হওয়া উচিত অন্যেকে সুখী করা। কথায় আছে পৃথিবীতে দান করে কিংবা মানবসেবা করে কেউ কখনো গরীব হয়নি, বরং গরীব মানসিকতার মানুষরাই কখনো কারো জন্য কিছু করতে পারেনি। আর্ত-মানবতার সেবায় নিজেকে বিলিয়ে দেওয়ার মধ্যেই রয়েছে জীবনের স্বার্থকতা।

সেই মানুষগুলোই সবচেয়ে সুখী হয়েছে, যারা নিজেদেরকে আর্তমানবতার সেবায় নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছে। নিজের জন্য নয় সমাজ ও মানুষের সেবা করার মাঝেই সবচেয়ে বড় আনন্দ। ছাত্রাবস্থা থেকেই মানুষের কল্যানে নিবেদিত এক প্রান হয়ে কাজ করছেন জাহাঙ্গীর আলম।

সততা,ন্যায় নিষ্ঠা আর শক্ত মনোবল নিয়েই হাটি হাটি পা পা করে ছুটে চলছেন অজানা পথে। দেশ ও মানুষের জন্য কিছু করার দৃঢ় মনোবল নিয়ে মানবতার সেবায় স্বয়ংক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করছেন ২৮ বছর বয়সের এই যুবক।

চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলার পালাখাল মডেল ইউনিয়নের মেঘদাইর গ্রামের এক সমৃদ্ধ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন তিনি, পিতা মো. সাহেব আলী এবং মাতা মোছাঃ পারভিন আক্তার। হাজারো ব্যস্ততার মাঝেই যতটুকু সময় পারছেন ততটুকু সময় দিচ্ছেন মানবতার সেবায়।

জাহাঙ্গীর আলম কচুয়া হযরত শাহ নেয়ামত শাহ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারী কলেজ থেকে এইচএসসি, স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটি থেকে এলএলবি ও এলএলএম সম্পন্ন করেন। বর্তমানে তিনি ঢাকা জজকোর্টে শিক্ষানবিশ আইনজীবী হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

গত সাত মাস পূর্বে মেঘদাইর গ্রামের ভূমিহীন রিকশাচালক মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম টিউমারে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। এ খবর শুনে একই গ্রামের মোঃ জাহাঙ্গীর আলম ছুটে আসলেন শহিদুল ইসলামের পাশে।তিনি তার চিকিৎসার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা করলেন । অসুস্থ শহিদুলকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা বারডেম হাসপাতালে ভর্তি করেন তারপর ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে নিজের সর্বোচ্চ দিয়ে মেডিকেল ট্রিটমেন্ট করান তিনি। সাথে তাকে সাহায্য করেছেন মেঘদাইর মানব কল্যাণ সংঘের সদস্যরাও। শহিদুল ইসলামের চিকিৎসা বাবদ প্রায় পাঁচ লক্ষাধিক টাকা ব্যয় করেন তিনি, যে সাহায্যে দেশ বিদেশের সকলে এগিয়ে এসেছেন। শহিদুলের অবস্থার উন্নতি হলে ঢাকা মেডিকেল থেকে তাকে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। মোঃ জাহাঙ্গীর আলম দিনের বেশিরভাগ সময় তাকে দেখাশোনা করছেন এবং তার সকল প্রয়োজনীয় জিনিস পৌঁছিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু হাজারো কষ্টের পরও আর বাঁচাতে পারলো না শহিদুল ইসলামকে । অবশেষে টিউমারে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন শহিদুল ইসলাম । শহিদুল ইসলামের মৃত্যুতে মন ভেঙ্গে যায় মোঃ জাহাঙ্গীর আলমের। মোঃ শহিদুল ইসলাম মৃত্যুর পূর্বে তার দুইটি মেয়ে রেখে যান যাদের মাও নেই এবং শহিদুল ইসলাম একজন বৃদ্ধ মা রেখে যান যারা আজ খুব অসহায় তাদের পাশে আর কেউ রইল না। তাই মোঃ জাহাঙ্গীর আলমের সমাজের সকল বিত্তবানদের কাছে আকুল আবেদন যাতে এতিম অসহায় শহিদুল ইসলামের দুইটি মেয়ে এবং বৃদ্ধ মায়ের পাশে সাহায্যর হাত বাড়িয়ে দেন।

এদিকে তিনি মেঘদাইর আজিজিয়া জামে মসজিদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং মেঘদাইর মানব কল্যাণ সংঘের কার্যনির্বাহী সদস্য।

সমাজে ভালো মানুষের সংখ্যা একেবারে ফুরিয়ে গেছে তা মনে হয় না। এতো কিছুর পরও এখনো সৃষ্টি হচ্ছে জাহাঙ্গীর আলম। এভাবেই প্রকৃত মানুষ মানুষের উপকারে ব্রতী হবে। আসুন কামিনী রায়ের মতো বলি, ‘আপনারে লয়ে বিব্রত রহিতে, আসে নাই কেহ অবনী’পরে, সকলের তরে সকলে আমরা, প্রত্যেকে মোরা পরের তরে’।

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১