আজ বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০১:০২ পূর্বাহ্ন


এমপি ছোট মনিরকে ৫ কোটি টাকা না দেওয়ায় সড়কের কাজ বন্ধের অভিযোগ

টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইল-২ (গোপালপুর-ভূঞাপুর) আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) তানভীর হাসান ওরফে ছোট মনিরকে পাঁচ কোটি টাকা চাঁদা না দেওয়ায় ভূঞাপুর-তারাকান্দি আঞ্চলিক মহাসড়ক সম্প্রসারণের কাজ সাত মাস ধরে বন্ধ রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

সম্প্রসারণের কাজটি মোট ১৪০ কোটি টাকার। এ নিয়ে পুরো উপজেলা শহরেই চলছে আলোচনা-সমালোচনা।

জানা যায়, তিনি গ্রুপে ভূঞাপুর-তারাকান্দি আঞ্চলিক সড়ক (অর্জুনা হাটখোলা থেকে সোনামুই বাজার পর্যন্ত আট কিলোমিটার ৬০ কোটি টাকা, ভূঞাপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে অর্জনা হাটখোলা পর্যন্ত নয় কিলোমিটার ৫৮ কোটি টাকা এবং সোনামুই বাজার থেকে তারাকান্দি পর্যন্ত ১২ কিলোমিটার সড়ক ৮০ কোটি টাকা ব্যয়ে) সম্প্রসারণের কাজ পায় ঢাকার রানা বিল্ডার্স প্রাইভেট লিমেটেড নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান।

আর এ কাজের কার্যাদেশ দেওয়া হয় চলতি বছরের ২ এপ্রিল। কাজ শেষ করার কথা ১৪ মাসে। কিন্তু স্থানীয় এমপি তানভীর হাসান ছোট মনির প্রথমে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কাছে ওই কাজটি নিজে করবেন বলে কাজটি তাকে দিয়ে দিতে বলেন। এতে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ দিতে না চাইলে তাদের কাছে পাঁচ কোটি টাকা চাঁদা দাবি করেন এমপি ছোট মনির। এ নিয়ে এমপির টাঙ্গাইল ও ঢাকার বাসায় দফায় দফায় বৈঠকও হয়। কিন্তু এতে কোনো সুরাহা হয়নি। গত ২০ অক্টোবর আবার কাজ শুরু করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান।কাজ শুরুর খবর পেয়ে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম বাবু, আরিফ ও মাসুদের নেতেৃত্বে একদল সন্ত্রাসী উপজেলার গারাবাড়ি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের ক্যাম্পে গিয়ে হাজির হন। তারা এসময় রানা বিল্ডার্সের সাইট ম্যানেজার সোহেল রানা জনির কাছে জানতে চান যে এমপির বিষয়টি মিমাংসা না করে কেন কাজ শুরু করা হয়েছে? এ কথা বলেই কাজে নিয়োজিত এক্সাভেটরের (মাটি কাটার যন্ত্র) চালক জহুরুল ইসলামকে মারধর করে চাবি ছিনিয়ে নেন তারা।

এসময় সাইট ইঞ্জিনিয়ার আলতাব হোসেনের শার্টের কলার ধরে এলোপাথাড়ি মারধর করে পেট্রোল দিয়ে পুড়িয়ে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়। পরে বিষয়টি প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানালে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত হন। পরে থানায় জনিকে ডেকে নিয়ে চাবি ফেরত দেওয়া হয়। এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান রানা বিল্ডার্সের সাইট ম্যানেজার সোহেল রানা জনি বাদী হয়ে দু’জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ১০/১২ জনকে আসামি করে ভূঞাপুর থানায় চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করেন।

এ বিষয়ে রানা বিল্ডার্সের সাইট ম্যানেজার সোহেল রানা জনির বাবা উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা ফিরোজ চৌধুরী এ প্রতিবেদককে জানান, এমপি তানভীর হাসান ছোট মনির তার সঙ্গে এ বিষয়ে কোনো কথা বলেননি। তবে তার ছেলেকে কয়েকবার তার বাসায় ডেকে নিয়ে বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিয়েছেন। এ কারণে তার ছেলে এমপির কয়েকজন সহযোগীর নামে একটি মামলাও করেছেন।এদিকে সড়কের সম্প্রসারণের কাজ দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ থাকায় নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শেষ করতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আলম। তবে প্রথমে তিনি এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি না হলেও পরে এ প্রতিবেদককে বলেন, এভাবে সরকারের উন্নয়ন কাজে বাধা দেওয়াটা যুক্তিসঙ্গত নয়। এভাবে উন্নয়ন কাজে বাধা দেওয়া মানে সাধারণ জনগণকে ভোগান্তিতে ফেলা। এমপি সাহেব প্রথমে আমাদের কাছে কাজ চান, তাতে রাজি না হওয়ায় পরে টাকা দাবি করছেন। দাবিকৃত টাকা না দেওয়ায় সাত মাস ধরে কাজটি বন্ধ রাখতে হয়েছে।

এ বিষয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য তানভীর হাসান ছোট মনির এ প্রতিবেদককে বলেন, কাজের উদ্বোধন আমারই করার কথা ছিল। আজ ঠিকাদারের সঙ্গে বসার কথা ছিল। আর আমার সঙ্গে কোনো ঝামেলা বা আমি এ বিষয়ে কিছুই জানি না। তাবে মাটি নিয়ে লোকাল লোকজনের সঙ্গে ঝামেলা থাকতে পারে।

ভূঞাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাশিদুল ইসলাম এ প্রতিবেদককে জানান, সড়কের সংস্কার কাজে চাঁদাবাজির অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। মামলাটির তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত এ বিষয়ে কিছু বলা যাবে না।

সূত্র: বাংলানিউজ